মুক্তি পাচ্ছে ‘হরিবোল’র নতুন গান

492

আগামী ১০ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় ‘জি-সিরিজ’-এর ব্যানারে রিলিজ হবে ‘হরিবোল’ চলচ্চিত্রের আরো একটি গান ‘চৈতন্য চাঁদের উদয়’। গানের কথা ভবা পাগলা, সুর প্রচলিত আর সংগীত পরিকল্পনা করেছেন ভারতের বিশিষ্ট সঙ্গীতজ্ঞ অংশুমান। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন ভারতের বিখ্যাত শিল্পী সাত্যকি ব্যানার্জি।

এর আগে শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে রিলিজ হয় ‘হরিবোল’ চলচ্চিত্রের থিম সং। যার শিরোনাম ছিল ‘বন্ধু এ মনে ভয় কাটে’। দেশের অন্যতম শীর্ষ অডিও-ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জি সিরিজের ব্যানারে ২১ অক্টোবর গানটি ইউটিউবে উন্মুক্ত করা হয়। যে গানের কথা, সুর ও সঙ্গীতায়োজন করেছেন কলকাতার গুণী সঙ্গীতশিল্পী অংশুমান। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন অংশুমান, অর্পিতা, সিনজিনী, অরুন্ধতি ও অনিমেষ। আর ৩১ অক্টোবর রিলিজ হয় ‘হরিবোল’ চলচ্চিত্রের টাইটেল সঙ ‘আমি জানি না তোর বুকের অতল’। গানটির কথা, সুর ও সংগীত আয়োজন করেছেন অংশুমান এবং কণ্ঠ দিয়েছেন বাংলাদেশের বিখ্যাত শিল্পী বাউল শফি মন্ডল।

‘হরিবোল’ সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন কথাসাহিত্যিক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা রেজা ঘটক। আনিসুজ্জামান নিবেদিত এই সিনেমা প্রযোজনা করেছে বলেশ্বর ফিল্মস। পুরো চলচ্চিত্রের সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন অংশুমান। ‘হরিবোল’ চলচ্চিত্রের তৃতীয় গানটিও লিরিক্যাল ভিডিও আকারে প্রকাশিত হবে। তবে এবার প্রেজেন্টেশানে রাখা হয়েছে আরো ভিন্ন মাত্রা।

এই চলচ্চিত্রের গানগুলোতে কণ্ঠ দিয়েছেন বাংলাদেশের প্রখ্যাত বাউলশিল্পী শফি মন্ডল ও বাউল নলীনি মণ্ডল এবং ভারতের বিশিষ্ট সঙ্গীতশিল্পী সাত্যকি ব্যানার্জি, অংশুমান, অর্পিতা, অনিমেষ, অরুন্ধতি ও সিনজিনী। গানগুলোর গীতিকার ও সুরকার হলেন লালন শাহ, ভবা পাগলা ও অংশুমান।

‘হরিবোল’ চলচ্চিত্রের গান প্রকাশ প্রসঙ্গে নির্মাতা রেজা ঘটক বলেন, ইতোমধ্যে ‘হরিবোল’ সিনেমার থিম সঙ ও টাইটেল সঙ হাজার হাজার মানুষের হৃদয় জয় করেছে। সঙ্গীতবোদ্ধাদের কাছ থেকে খুব ভালো ফিডব্যাক পাচ্ছি। সবাই দুটো গানেরই ক্লারিটি ও মেরিট বুঝে প্রশংসা করেছেন। এছাড়া সাধারণ শ্রোতাদের কাছে দুটো গানই বিপুল সাড়া জাগিয়েছে। আশা করি ‘চৈতন্য চাঁদের উদয়’ গানটিও সবার হৃদয়ে স্থায়ী জায়গা করে নেবে।

এ প্রসঙ্গে জি সিরিজের কর্ণধার নাজমুল হক ভুঁইয়া খালেদ বলেন, দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে ‘হরিবোল’ চলচ্চিত্রের গান প্রকাশের অংশ হতে পেরে আমরা আনন্দিত। ‘হরিবোল’ সিনেমার থিম সঙ এবং টাইটেল সঙ নিয়ে স্যোশাল মিডিয়ায় অনেক গুণিজনের রিভিউ পড়েছি। সবাই দুটো গানের খুব উচ্চকিত প্রশংসা করেছেন। অনেকে স্বেচ্ছায় গান দুটি নিজেদের ফেসবুকে শেয়ার করেছেন। গান দুটি আমারও খুব ভালো লেগেছে। আশা করি সঙ্গীত শ্রোতাদের জন্য ‘হরিবোল’ সিনেমার ‘চৈতন্য চাঁদের উদয়’ গানটিও দারুণভাবে মনোরঞ্জনের খোরাক জোগাবে।

এর আগে ‘হরিবোল’ থিম সঙটি শুনে বাংলাদেশের বিশিষ্ট কবি, নজরুলগীতি শিল্পী ও গবেষক সুজিত মোস্তফা বলেন, ‘গানের মধ্যে খুব ক্লারিটি আছে। সুরের মধ্যে আমি সেই ময়মনসিংহ গীতিকা থেকে সেই ত্রিপুরার ফ্লেবারও পাচ্ছি। কিছুটা সচিন কর্তার ফ্লেবারও পাচ্ছি। ফোক তো আছেই, ট্রাডিশনাল ইনস্ট্রুমেন্টগুলো বেশ মুন্সিয়ানার সাথে ব্যবহার করা হয়েছে। হামিংগুলো খুব অপূর্ব হয়েছে। মিক্সিং-মাস্টারিং অতুলনীয়। সুরটা যেহেতু একেবারে আমাদের মাটির সুর, ফলে ওটা ধক করে আমাদের বুকে গিয়ে ধাক্কা মারে। সব মিলিয়ে অপূর্ব হয়েছে’।

নির্মাতা রেজা ঘটক জানান, ১০ নভেম্বর ‘হরিবোল’ চলচ্চিত্রের ‘চৈতন্য চাঁদের উদয়’ গানটি রিলিজ করার পর ধারাবাহিকভাবে ‘জি-সিরিজ’ এর ব্যানারে আগামী ২০ নভেম্বর ‘হরিবোল’ চলচ্চিত্রের অপর গানটিও রিলিজ করা হবে। আর করোনা মহামারী শেষ হলে নিউ-নরমাল লাইফে খুব শিঘ্রই ‘হরিবোল’ সিনেমাটি মুক্তি দেওয়া হবে। ততদিন ‘হরিবোল’ সিনেমার গান শুনে ভক্তদের অপেক্ষা করার জন্য তিনি অনুরোধ করেছেন।

অনি/সিনেটিভি