অ্যাকশনে ভরপুর মুভি ‘কাইথি’ : নাঈম হাসান

368

সিনেমা প্রেমিদের নতুন উন্মাদনা নাম হতে যাচ্ছে তামিল মুভি কাইথ। দশ বছর পর সদ্য জেইল ফেরত খুনের আসামি শিভা যাচ্ছে এতিমখানায় তার মেয়ের কাছে। যেই মেয়েকে কোনদিন সে দেখেনি। কিন্তু বিপত্তি বাঁধাল পুলিশ অফিসার অর্জুন। মদের সাথে ড্রাগ দিয়ে অবচেতন করা প্রায় বিশজন পুলিশ অফিসারকে নিয়ে যেতে হবে হাসপাতালে, দ্বায়িত্ব পড়ে শিভার উপরে। শুরু হতে থাকে না না বিপত্তি। এভাবেই এগোতে থাকে তামিল মুভি ‘কাইথি’।

এদিকে থানার গোপন কক্ষে রাখা বিপুল পরিমাণ ড্রাগ, রাতের বেলায় সেখানে হানা দেয়া পরিকল্পনা করে ড্রাগ ডিলার আর তার গ্যাংয়ের সদস্যরা। আর তা জেনে আগেই সরে গিয়েছে দ্বায়িত্বরত কনস্টেবলরা। থানায় শুধু অবস্থানরত ছিল সদ্য ট্র্যান্সফার হওয়া মধ্যবয়ষ্ক কনস্টেবল আর মদ্যপানের মামলায় আটক কিছু ইঞ্জিয়ারিং পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রী। আর সেই ডিলারের গ্যাংয়ের লোকেরাই আটক ছিল থানার লকারে।

নিজের জীবনের মায়া ত্যাগ করে কনস্টেবল থানায় অবস্থানরত ছাত্র ছাত্রীদের নিয়ে গোটা থানার দরজা জানালা আটকে শুরু করে এক লড়াই। অপর পাশে শিভা সকল ঝঞ্ঝা বাঁচিয়ে নিয়ে পুলিশ অফিসারদের নিয়ে যেতে থাকে হাসপাতালে। সে নিজেও জানেনা কাল সকালে দেখতে পারবে কিনা এতিম খানায় কষ্টে থাকা তার মেয়েকে।

এমনিই এক উত্তেজনায় ভরা মুভি কাইথি, যা শেষ অবধি ভামুগ্ধই করে সাথে দুর্দান্ত একজন। আর ছবির অন্যতম ভালো দিক হল, অহেতুক নায়ক নায়িকার গান, বাজনা কিংবা রোমান্টিক দৃশ্য নেই। সিনেমার প্রত্যেকেই ভালো অভিনয় করেছে তবে মন কেড়েছে খলঅভিনেতা অর্জুন দাশের অভিনয়। লোকেজ কানাগারাজ পরিচালিত সিনামা ‘কাইথি’ মুভির প্রতিটি দৃশ্য দারুণ ভাবে উপভোগ করছে সিনেমা প্রেমিরা।