‘মাই সেসি গার্ল’ রিভিউ

242

ভালোবাসাকে কি কখনো ধরাবাঁধা কোন সংজ্ঞা দিয়ে আবদ্ধ করে রাখা যায়? আমার মনে হয় যায় না। কারন, ক্ষেত্র ভেদে; ব্যক্তি ভেদে ভালোবাসা একেক ধরনের হয়। মুভিটি দেখলেই তা স্পষ্ট ভাবে বোঝা যাবে।

মুভির নায়ক কি ভাবতে পেরেছিলো তার জীবনে এমন ভালোবাসা আসবে! আমি আমার এর আগের কোরিয়ান মুভির রিভিউ লিখার সময় লিখেছি সাউথ কোরিয়ান মুভি গুলো এক এক টা ভালোবাসা, আজকে আবার বলছি কোরিয়ান মুভি গুলো এক এক টা ভালোবাসা।

My Sassy Girl (2001)
Genre : Romance/Comedy
Run Time : 2 hours 3 minutes
IMDb: 8/10
Personal Rating : 9/10
Country : south Korea

মুভির শুরুতে (Gyeon-Woo) গল্পের নায়ক একজন বোকাসোকা টাইপ মানুষ ছিলেন।তার জীবনের প্রেম আসে একটু ভিন্ন ভাবে। একদিন রেল স্টেশনে মদ্যপায়ী এক মহিলা কে উদ্ধার করে সে। সেখান থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেয় তাকে। কিন্তু সে নিজেও ছিলো মানসিকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত। কারন, নিজের প্রেমিকার সাথে তার সদ্য ব্রেক আপ হয়েছে।

মেয়েটির হুশ ফেরার পর তার কথাবার্তা বা আচার-আচরনে পাগলামি ভাব থাকায় জিয়নের একদম পছন্দ হয় না মেয়েটিকে। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে কেমন যেন এই পাগলামো ভাব ও ভালো লেগে যায় তার।

শুধু জিয়ন না, সাথে সাথে মেয়েটিও ভালোবেসে ফেলে তাকে। একটা সময় মেয়ের পরিবার জেনে ফেলে তাদের সম্পর্কের কথা। কিন্তু তাদের সম্পর্ক আর দশ টা সম্পর্কের মত না। একটু ভিন্ন। এরা এদের ভালোবাসা প্রকাশ করতে চিঠি আদান প্রদান করতো। এক সময় তারা সিদ্ধান্ত নেয় যে চিঠি গুলো একটা গাছের নিচে পুতে রাখবে আর ২ বছর পর এসে সেখানে দেখা করবে আর চিঠি গুলো পড়বে।

কিন্তু তারপর? সত্যি কি তাদের আর দেখা হবে? নাকি ভালোবাসা কোন শীতের কুয়াশা ঢাকা সকালের মত ঘোলাটে হয়েই থাকবে! সব প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পেতে হলে মুভিটি দেখে ফেলতে হবে। আমার কাছে খুব ভালো লেগেছে মুভিটি। আর সব থেকে ভালো লেগেছে মুভির শেষটা। চমৎকার একটি টুইস্ট দিয়ে সুন্দর করে শেষ করা হয়েছে।

অনি/সিনেটিভি